• নরসিংদী
  • বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

Advertise your products here

নরসিংদী  বুধবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ;   ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
website logo

শিবপুরে একটি বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ 


জাগো নরসিংদী 24 ; প্রকাশিত: শনিবার, ১২ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০১:২৮ পিএম
শিবপুরে একটি বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ 
বিদ্যালয় ভবন

শিবপুর সংবাদদাতা: নরসিংদীর শিবপুরে বিদ্যালয় থেকে বিনা অনুমুতিতে গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে স্কুল প্রধানের বিরুদ্ধে। উপজেলার ৪০নং আশ্রাফপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি কাঁঠালগাছসহ ৫টি গাছ বিক্রি করা হয়েছে। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন স্কুলের সহকারী শিক্ষক কবির হোসেন ভূঁইয়া।

এ বিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আছমা বেগম, মুঠোফোনে বলেন, আমি অফিসিয়াল বিষয়ে অফিসে উপস্থিত না হয়ে কিছু বলতে চাই না। আপনার কিছু জানার থাকলে অফিসে আসবেন।

আশ্রাফপুর গায়বী মসজিদের পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়া জানান, এই গাছগুলো মসজিদের, মসজিদ কমিটি বিক্রি করছে।

বন বিভাগের কার্যালয় সূত্র জানায়, সরকারি অফিসের কোনো গাছ কাটতে হলে সংশ্লিষ্ট অফিস থেকে অনুমোদন নিতে হয়। এরপর বন বিভাগে আবেদন করতে হয়। সেই আবেদন সরেজমিন যাচাই-বাছাই করে গাছের মূল্য নির্ধারণ করে কাটার অনুমোদন দেয় বন বিভাগ। আশ্রাফপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের সময় কয়েকটি গাছ কাটা হয়েছে। সে গাছগুলো বিক্রির জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়া অন্য কোন গাছ বিক্রি করে থাকলে সেটা আমার অবগত নয়।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিরন ভূঁইয়া জানান,  আমি জানি গাছগুলো স্কুলের না, মসজিদের।

স্কুলের সাবেক শিক্ষক মনোয়ারা বেগম ও আব্দুল হাই মাষ্টার, মুঠোফোনে জানান,গাছগুলো আশ্রাফপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  শিক্ষকরা রোপণ করেছেন। আমাদের নিয়মিত পরিচর্যায় সেই গাছগুলো বেড়ে উঠেছে। 

অভিযোগের বিবরণে জানা যায়,শিবপুর পৌরসভায় অবস্থিত ৪০নং আশ্রাফপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টি মাঠের পূর্ব দিকে উত্তর-দক্ষিণ বরাবর একটি ভবন যেটি পশ্চিম দিকে মুখ করে অবস্থিত একই মাঠের উত্তর পাশে পূর্ব-পশ্চিম বরাবর দক্ষিন দিকে মুখ করে অবস্থিত আরো একটি মনোরম ভবন যেটি এখনো উদ্ভোধন হয়নি।

এই নতুন ভবনটি ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের সময় যে সকল গাছ কাটা হয়েছিল তা উর্ধবর্তন কতৃপক্ষের অনুমুতি সাপেক্ষে কাটা হয়েছে এবং গাছ গুলো এখনো মাঠে পড়ে আছে, সরকারী দরপত্রের মাধ্যমে বিক্রির অপেক্ষায়। একই মাঠের পশ্চিম সীমানা পেরিয়ে আশ্রাফপুর গায়বী মসজিদ নিজস্ব সীমানার ভিতরে অবস্থিত, বিদ্যালয়ের সীমানার পশ্চিম দিকে অবস্থিত যে ০২টি আকাশি, ০১টি মেহগনি ও ০২টি কাঠাল গাছ (মোট ০৫টি) যা বিদ্যালয় সীমানার ভিতরে অবস্থিত যে গুলো বিদ্যালয়ের সীমানা ও মসজিদ সীমানা পৃথককারী হিসাবে স্বাক্ষী বহন করত।

কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় গত ৩০/১০/২২ খ্রিঃ, রোজঃ রবিবার বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে দেখি প্রধান শিক্ষক এর উপস্থিতিতে গাছ গুলো কাটা এবং গাছ গুলো (ক্রেতা/ব্যাপারী ) দ্রুত নিয়ে যেতে প্রধান শিক্ষক সহযোগীতা করছে। প্রধান শিক্ষক এর উপস্থিতিতে গাছ কাটা ও বিক্রি হয়েছে।

উক্ত ঘটনা ধামা চাপা দেওযার জন্য গাছগুলো মসজিদের বলে চালানোর চেষ্টা করা হচ্ছে এবং গাছগুলো মসজিদের বলে দাবি করার জন্য এলাকাবাসীকে বলছে। একই সাথে যে যে স্থান থেকে গাছগুলো কাটা হয়েছে সেখান থেকে শিখর উঠিয়ে ফেলা হচ্ছে ও গর্তগুলো মাটি দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে যাতে করে গাছ কাটার সকল আলামত ধ্বংস হয়ে যায়। আমি প্রতিষ্ঠানের একজন শিক্ষক হিসাবে প্রতিষ্ঠানের এরকম কর্তৃপক্ষের অনুমুতি বিহীন গাছ কাটার বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করছি।

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নূর মোহাম্মদ রুহুল সগীর জানান, ৪০নং আশ্রাফপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঁচটি গাছ কাটার একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত-পূর্ব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অর্থনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ